• সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪  

প্রতিষ্ঠানের নীতিমালা


ভর্তি জানুয়ারি মাসের নির্দিষ্ট তারিখ ভর্তির জন্য নির্ধারিত ফরমে আবেদন করতে হয়।

শিক্ষাবর্ষ ঃ স্কুল: ১ জানুয়ারি হতে ৩১ ডিসেম্বর, কলেজ শাখা : ১ জুলাই হতে ৩০জুন ।।

কর্মকালঃ সকাল ১১.০০টা থেকে বিকাল ৪.৪০ টা।

অধ্যয়নের বিষয়সমূহঃ  

স্ব-স্ব শ্রেণির জন্য জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড কর্তৃক নির্ধারিত পুস্তক সমূহ।

পোষাকঃ

নীল রঙের কালার যুক্ত নীচের দিকে গোলাকার জামা, সাদা পায়জামা, সাদা স্কার্ফ, গাঢ় নেভী ব্লু বেল্ট, সাদা ক্রসবেল্ট, সাদা কাপড়ের জুতা, কেডস্ ও মোজা। শীতকালে লাল সুয়েটার। যারা বোরকা পড়তে ইচ্ছুক তাদের কামিজের কালার বোরকা পড়তে হবে।

বেতনঃ

প্রতি মাসে সপ্তাহের সোমবার ব্যাংক বুথের মাধ্যমে বেতন আদায় করা হবে।

নির্দিষ্ট তারিখেই বিদ্যালয়ের নির্দিষ্ট ব্যাংক বুথে বেতন পরিশোধ করতে হবে। অনিবার্য কারণবশতঃ বিদ্যালয়ের ব্যাংক বুথ বসানো সম্ভব না হলে, প্রিমিয়ার ব্যাংক, পাহাড়তলী শাখায় বেতন পরিশোধ করতে হবে। তাছাড়া বাংলাদেশের যে কোন প্রিমিয়ার ব্যাংক শাখায়ও ধার্য তারিখে বেতন পরিশোধ করা যাবে। নির্দিষ্ট তারিখ বেতন পরিশোধ করতে ব্যর্থ হলে এক মাসের বেতনের সমপরিমাণ জরিমানা দিয়ে ধার্য তারিখের পরবর্তী যে কোনোদিনে (সরকারি বন্ধের দিন ব্যতিত) বেতন পরিশোধ করতে হবে।

পরীক্ষাঃ   

প্রতিষ্ঠানের সাপ্তাহিক ও মাসিক পরীক্ষা প্রচলিত আছে। তাছাড়াও ষান্মাসিক/প্রাক-নির্বাচনী/বার্ষিক পরীক্ষার গড় নম্বরের ভিত্তিতে ছাত্রীদের শিক্ষার মাননির্ণয় করা হয়। প্রতি পরীক্ষায় প্রগতিপত্র অভিভাবক/অভিভাবিকাদের নিকট পাঠানো হয়। উক্ত প্রগতিপত্র পাওয়ার ৭ দিনের মধ্যে অভিভাবকের দস্তখত নিয়ে শ্রেণি শিক্ষকের নিকট জমা দিতে হবে।

ফলাফলঃ   

দুই পরীক্ষার গড় নম্বরের ভিত্তিতে চূড়ান্তভাবে সন্তোষজনক ফলাফল লাভে ব্যর্থ ছাত্রীদের কোন অবস্থাতেই পরবর্তী শ্রেণিতে প্রমোশন দেয়া হয় না। এ ছাড়া মাসিক মূল্যায়ন পরীক্ষা অংশগ্রহণ বাধ্যতামূলক। সি.এ এর মাধ্যমে শিক্ষার্থীর সার্বিক মূল্যায়ন করা হয় এবং প্রাপ্ত নম্বর সমন্বয় করা হয়।

ছাড়পত্রঃ

এক সপ্তাহ পূর্বে যাবতীয় পাওনাদি পরিশোধ করে দরখাস্তের সাথে রসিদ সহ প্রধান শিক্ষকের বরাবর জমা দিতে হবে।

অনুপস্থিতঃ

প্রতিষ্ঠানে অনুপস্থিত থাকলে অভিভাবিকাগণকে তার লিখিত কারণ দর্শাতে হবে।

টিফিনঃ 

দোকানের খাবার এবং খোলা খাবার নিষিদ্ধ। প্রয়োজনবোধে বাসা থেকে আনা যাবে।

প্রাত্যহিক সমাবেশঃ

শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দের তত্ত্বাবধানে প্রাত্যহিক সমাবেশ একটি আকর্ষণীয় অনুষ্ঠান। প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব পোষাক পরিধান পূর্বক সমাবেশে অংশগ্রহণ করতে হয়। তাছাড়াও প্রতিষ্ঠানের প্রতিটি কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহন বাধ্যতামূলক।

সংক্রামক রোগঃ

কোন শিক্ষার্থী ছোঁয়াচে বা সংক্রামক ব্যধিতে আক্রান্ত হলে তা প্রতিষ্ঠান প্রধানকে অবগত করতে হবে এবং প্রয়োজন বোধে সম্পূর্ণ আরোগ্য লাভ না করা পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানে আসা হতে বিরত থাকবে।

শিক্ষক- শিক্ষিকাদের সাথে অভিভাবকের সাক্ষাৎকারঃ    

ছাত্রীর পাঠোন্নয়ন তথা যাবতীয় কার্যাবলী সম্পর্কে আলোচনার জন্য প্রয়োজনবোধে অভিভাবক-অভিভাবিকাগণ প্রতিদিন অনুমতি সাপেক্ষ সংশ্লিষ্ট শিক্ষক-শিক্ষিকার সাথে দেখা করতে পারবেন।

শিক্ষাঙ্গনের বাইরে যাওয়ার অনুমতিঃ

প্রতিষ্ঠান চলাকালীন সময় বা বিরতির সময় প্রতিষ্ঠানের ফটকের বাইরে যাওয়া কঠোরভাবে নিষিদ্ধ। একান্ত প্রয়োজন অভিভাবক-অভিভাবিকাগণের লিখিত অনুরোধের প্রেক্ষিতে শ্রেণি শিক্ষক শিক্ষিকার সুপারিশক্রমে প্রতিষ্ঠান প্রধান অনুমতি দিয়ে থাকেন।

শাস্তিঃ

(ক) কোন ছাত্রী পরপর দুই বৎসর একই শ্রেণিতে অকৃতকার্য হলে তাকে প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়ন করার সুযোগ দেয়া হবে না।

(খ) যদি কোন ছাত্রী প্রতিষ্ঠান পরিপন্থী কোন কাজে লিপ্ত হয় বা পরোক্ষভাবে অন্যকে প্রলুদ্ধ করে তাকে অবশ্যই বাধ্যতামূলক ছাড়পত্র দেয়া হবে। প্রতিষ্ঠানিক স্বার্থে উপরোক্ত যে কোন নিয়মাবলীর পরিবর্তন বা পরিবর্ধন প্রতিষ্ঠান প্রধানের সিদ্ধান্তই সকল ব্যাপারে চূড়ান্ত বলে বিবেচিত হবে।

নোটিশ বোর্ড

অধ্যক্ষ

মো. আবুল কাশেম

ফোন 01815620541

ইমেইল [email protected]

ভিডিও গ্যালারি

যোগাযোগ ও পরামর্শ

ক্যাম্পাস :
North Kattali, AkbarShah, Chattogram

Phone: 01815620541

Facebook : Facebook Page